বর্তমানে সেরা ১০টি Mobile Phone Brand বা মোবাইল ফোন ব্রান্ড সম্পর্কে জানুন


                                                                         


                                                                          
বর্তমানে সেরা ১০টি Mobile Phone Brand বা মোবাইল ফোন ব্রান্ড সম্পর্কে জানুন


 

ফেন্ড বর্তমান সময়ে স্মার্টফোন আমাদের জীবনের সাথে জরিয়ে পড়েছে। আমাদের দৈনিন্দ জীবনে আমরা এক মূহুত্যেও মোবাইল ফোন ছাড়া চলতে পারিনা। মোবাইর ফোন আমাদের জাতীকে করে দিয়েছে অনেক উন্নত। অনেক কাজেই আমরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে থাকি। কথা বলা থেকে শুরু করে যোগাযোগ করা পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রেই মোবাইল আমাদের উপকার করে আসছে। এছাড়াও মোবাইল ফোনের ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমরা পুরো বিশ্বকে জানতে পারি খুব সহজেই। দেশ বিদেশের সকল খবর পাওয়া যায় এক নিমিসেই। ফেন্ড আজকে আমি আপনাদের বাংলাদেশের সহ বিশ্বের সেরা ১০টি মোবাইল ফোনের ব্রান্ড সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব। 

 

তবে শুরু করার আগে মোবাইল বা Mobile Phone Brand বা মোবাইল ফোন ব্রান্ড সম্পর্কে আমরা কিছু তথ্য জেনে নেওয়ার চেষ্টা করব। নিচে দেওয়া হলোঃ


মোবাইল বা Mobile ফোনের ব্যবহার (Mobile Phone)
 

ফেন্ডস আমরা মোবাইল ফোন বিভিন্ন কারণে ব্যবহার করে থাকি তবে মূল করণ হলো ‘মোবাইল ফোন যোগাযোগের দারুন একটি মাধ্যম’। মোবাইলের মাধ্যমে আরমা বিশ্বের যেকোনো জায়গার মানুষের খোজ খবর নিতে পারি। বর্তমান সময়ে মোবাইল ফোনের গ্রাহকের সংখ্যা অনেক বেশি হয়ে গেছে। আর দিনে দিনে এটা বেড়েয় যাচ্ছে। বাংলাদেশে মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা সাড়ে ১৭ কোটি ছাড়িয়েছে আরও আগেই। দেশে বর্তমানে মোবাইল গ্রাহক ১৭ কোটি ৬৯ লাখ ৪০ হাজার। এক মাসের ব্যবধানে মোবাইল গ্রাহক ৫ লাখের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির জুন ও জুলাইর তথ্য বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।


মোবাইল বা Mobile ফোনের গুরুত্ব (Mobile Phone)
 

ফেন্ড প্রতিবেদনের শুরুতেই আমি বলেছি আমাদের জীবনের সাথে মোবাইল ফোন জরিয়ে পড়েছে। একটা মূহূত্য মোবাইল চাড়া আমরা চলতে পারি না। এছাড়াও আমাদের বিভিন্ন ভাবে মোবাইল ফোন উপকার করে থাকে। এজন্য মোবাইল ফোনের গুরুত্বপূ অনেক বেশি।


মোবাইল বা Mobile ফোনের আবিস্কার (Mobile Phone)
 

ফেন্ড আমরা যারা মোবাইল ফোন ব্যবহার করি তাদের মধ্যে কি কখনো প্রশ্ন জেগেছে যে কে এই আধুনিক যন্ত্রটি আবিস্কার করল। আপনি যদি না জেনে থাকনে তাহলে আমি আপনাকে জানিয়ে দিচ্ছি। প্রথম মোবাইল ফোন তৈরি হয়েছিল ১৯৭৩ সালে, আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে। আর তা তৈরি করেছিলেন ইঞ্জিনিয়ার মার্টিন কুপার। তাকেই বলা হয় মোবাইল ফোনের জনক। মার্টিন কুপার কাজ করতেন তখনকার এক ছোট টেলিকম কোম্পানি মোটরোলায়। আশা করি কে মোবাইল ফোন আবিস্কর করেছেন সেটা সম্পর্কে জেনে গেছেন।


সেরা ১০টি Mobile Phone বা মোবাইল ফোন ব্রান্ড
 

ফেন্ড ‍যুগের সাথে চলতে গিয়ে আমাদের দেশেসহ বিভিন্ন দেশে বেশ কিছু মোবাইল ফোনের ব্রান্ড রয়েছে যেখানকার মোবাইল আমারা প্রতিনিয়তই ব্যবহার করে থাকি। আজকের আপনি এমন কয়টি মোবাইল ফোনের ব্রেন্ড সম্পর্কে জানতে পারবেন। তাহলে বেশি বকবক না করে চলুন শুরু করা যাক আমাদের আজকের প্রতিবেদন।

 

১. স্যামস্যাং মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

ফেন্ড স্যামস্যাং বিশ্বের সেরা একটি মোবাইল ফোনের ব্রান্ড এবং বাংলাদেশের নাম্বার ১ মোবাইল ব্রান্ড। আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষ এই ব্রান্ডের ফোন ব্যবহার করে থাকে। অর্থাৎ আমাদের দেশে ব্রেন্ডটির চাহিদা অনেক বেশি। এই ব্রান্ডটি ২০০৯ সাল থেকে মোবাইল ফোন তৈরি করা শুরু করে এবং সময়ের সাথে সাথে এটি বিশ্বের সেরা মোবাইল ব্রান্ড হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। স্যামস্যাং ব্রান্ডের গ্যালক্সি সিরিজের নোট গুলো এখন বেশি ব্যবাহর করা হচ্ছে।

 

২. সিম্ফনি মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

ফেন্ড সিম্ফনি বাংলাদেশের সেরা একটি মোবাইল ব্রান্ড। এছাড়াও এই ব্রান্ডটি বিশ্বের টপ ১০ এর মধ্যে রয়েছে। বাংলাদেশেল প্রায় সকল শ্রেণির মানুষ এই ব্রান্ডের ফোন ব্যবহার করে থাকে। বাংলাদেশের এই ব্রান্ডটি চীন থেকে পণ্য বাজারজাত করে থাকে। আমাদের দেশে এই ব্রান্ডের ফোনের দাম পড়বে ৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১৫ হাজার টাকা আপর্যন্ত। এই ব্রান্ডের জনপ্রিয়তার কথা যদি বলি তাহলে এটি সবথেকে বেশি জনপ্রিয়াতা পেয়েছে বাংরাদেশেই। কারণ এটি বাংলাদেশেরই মোবাইল ফোন।

 

৩. হুওয়েই মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

ফেন্ড বাংলাদেশের এই মোবাইল ফোনের ব্রান্ডটি যেমনই আমাদের দেশে জনপ্রিয় ঠিক তেমনই অন্য দেশেই জনপ্রিয়। এটি বিশ্বের সেরা মোবাইল ব্রেন্ডের মধ্যে টপ ১০ এর মধ্যেই রয়েছে। এই ব্রান্ডটি চীনা ব্রান্ড হলেও বাংলাদেশি ব্রান্ড হিসেবে ব্যবহার করা হয়। অর্থাৎ চীন থেকে এই ব্রান্ডের ফোন তৈরি করা হয়। এই ব্রান্ডের ফোন গুলো দারুন ফিচারের হওয়ার কারণে বাংলাদেশী মানুষের কাছে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এই ব্রান্ডের মোবাইল ফোনের দাম পড়বে প্রায় ৭ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৬৭ হাজার টাকা পর্যন্ত।

 

৪. ওয়ালটন মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)

ফেন্ড বাংলাদেশী ব্রান্ড হিসেবে ওয়ালটন বিশ্বের সেরা মোবাইল ব্রান্ডদের তালীর রয়েছে। এই ফোনটি যেমন জনপ্রিয় তেমনই দেশী পণ্য হিসেবে অনেক ভালো সারভিজ দিয়ে থাকে। ওয়ালটনের আধুনিক ফিচার সমৃদ্ধ Primo S6 বর্তমানে উন্নতম আকর্ষন। এই ফেনটি বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় বেশিভাগ মানুষ ব্যবহার করে থাকে। আপনি কি এই ব্রান্ডের ফোন ব্যবহার করেন? কমেন্টে জানিয়ে দিবেন।

 

৫. অপো মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

ফেন্ড এই ফোনটি ইন্ডিয়ার। আমরা যেই ফোনটিকে সেলফি স্পেশালিস্ট হিসেবি চিনে থাকি সেটি হলো অপো Mobile Phone বা মোবাইল ফোন। বর্তমানে এই ফোনটি অনেক জনিপ্রয় একটি ফোন। আপনি যদি এই ফোনটি ক্রয় করতে চান তাহলে অনলাইনে অডার করতে পারেন অথবা এই ফোনটি আপনি পেয়ে যাবেন অপোর যেকোনো আউটলেটে।

 

৬. অ্যাপল আইফোন (Mobile Phone)
 

ফেন্ড অ্যামেরিকার সবথেকে জনপ্রিয় ব্রান্ড হলো অ্যাপল। বর্তমান পৃথিবীতে এমন কোনো মানুষ নেই যে অ্যাপ সম্পর্কে জানে না। ফেন্ড বেশ কয়েকবার জনপ্রিয়তার সবার উপরে অবস্থান করেছে অ্যামেরিকার এই ব্রান্ড। আমাদের দেশে প্রতি বছর নতুন নতুন চকম নিয়ে আসে অ্যাপল আইফোন। অ্যাপল এখন পর্যন্ত অনেকগুলো ফোন বাজারে নিয়ে এসেছে তার মাধ্যে উন্নতম একটি ফোন হলো iPhone 13 Pro। সবচেয়ে চাহিদাসম্পন্ন ব্যবহারকারীদের জন্য একটি অবিশ্বাস্য আইফোন। আপনি যদি আইফোন ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অবশ্যই কমেন্টে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ।

 

৭. শাওমি মোবাইল ব্রান্ড

মোবাইল বাজারে শাওমি ফোনটি নতুন হলেও বর্তমানে এটি অনেক জনিপ্রয়তা অর্জন করেছে। তাই বিশ্বের সেরা মোবাইল ব্রান্ড এর লিস্টের তার নাম রয়েছে। শাওমি ফোন বাংলাদেশ এবং ভারতে ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়। চায়না নির্মিত এই ফোনটি মূলত ভারতের বাজারকে টার্গেট করে তৈরি। পার্শ্ববর্তী দেশ হওয়ায় বাংলাদেশের মানুষের প্রথমে ভারত থেকে ফোনটি নিয়ে আসে। আস্তে আস্তে ফোনের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাওয়ায় শাওমি বাংলাদেশের জন্য তৈরি করতে থাকে বিভিন্ন মডেলের মোবাইল ডিভাইস। ফেন্ড আমি নিজেও শাওমি ফোন ব্যবহার করি। আপনি যদি ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অব্যশই কমেন্টে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ

 

৮. ইউ (Mobile Phone)
 

কম দাম এবং আকর্ষনীয় ফিচারের জন্য ইউ বর্তমান সময়ে অনেক মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। অফুরন্ত ক্লাউড স্টোরেজ আর মোবাইল ওয়াই ফাই হটস্পট সুবিধার জন্য এটি ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় অবস্থান করছে । দামও কম, পেয়ে যাবেন ৫০০০ টাকা থেকে ১৩০০০ টাকার মধ্যেই । আপনি যদি নতুন কোনো ফোন কিনতে চান তাহলে আমার মতে এই ফোনটি কিনতে পারেন। আশা করি কোনো প্রকার সমস্যা হবে না।

 

৯. এলজি মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

ফেন্ড এই ব্রান্ড এর সাথে অনেকেই অপরিচিত। এটি মূলত দক্ষিণ কোরিয়ার জনপ্রিয় একটি ব্রান্ড। এই ব্রান্ড এর ফোন ২০১৭ সালে চারটি ফরমেটে আমাদের দেশে এসেছিল। আর তখন থেকেই এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়। তবে বর্তমানে লোকসানে চলতে থাকা সেলুলার ডিভিশন বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার এই সংস্থাটি। এলজি প্রথম কোনও বৃহৎ জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড যেটি বাজার থেকে চিরতরে হারিয়ে যেতে চলেছে।

 

১০. এইচটিসি মোবাইল ব্রান্ড (Mobile Phone)
 

তাইওয়ানের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচটিসি প্রথম দিকে একটি বেশী বাজেটে স্মার্টফোন তৈরী করলেও ক্রেতাদের সুবিধার্থে তারা বাজেটের মধ্যে স্মার্টফোন তৈরীর দিকে বেশী ঝুঁকছে । সম্প্রতি এম ১০ নামের নতুন একটি স্মার্টফোন তৈরীর ঘোষনা দিয়েছে এইচ টি সি।

 

আমাদের শেষ কথা (Mobile Phone)
 

তো ফেন্ডস এই ছিলো আমাদের আজকের প্রতিবেদন। আশা করি এই প্রতিবেদন থেকে আপনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পেরেছে। এবং Mobile Phone Brand বা মোবাইল ফোন ব্রান্ড সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পেরেছেন। আপনার মূল্যবান সময় ব্যায় করে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। আর নিয়োমিত এমন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেদন পেতে হলে আমাদের এই সাইটের সাথেই থাকবে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন (0)
নবীনতর পূর্বতন